বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
বিকেলে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বৈঠক বুয়েট ভিসির

বিকেলে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বৈঠক বুয়েট ভিসির

চেকপোস্ট ডেস্ক: বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যায় শিক্ষার্থীদের ১০ দফা দাবি আদায়ের আলটিমেটাম আজ শুক্রবার দুপুর ২টায় শেষ হওয়ার কথা থাকলেও বিকেল ৫টায় উপাপচার্যের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের বৈঠক হচ্ছে।

দাবি মেনে নিতে শিক্ষার্থীদের দেওয়া আলটিমেটাম শেষ হওয়ার কথা ছিল আজ দুপুর ২টায়। তবে গত রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের পক্ষ থেকে জানানো হয়, আজ বিকেল ৫টায় তিনি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বসবেন। এর আগেই অবশ্য নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে দাবি না মানলে পুরো ক্যাম্পাসে তালা লাগানোর এবং ভর্তি পরীক্ষা বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দেন শিক্ষার্থীরা।

গতকাল বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা কমিটির বৈঠক ছিল। বৈঠক শেষে রাতে কমিটির সভাপতি অধ্যাপক কানাই লাল সাহা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ভর্তি কমিটির নিয়মিত বৈঠক ছিল। আর আমাদের এই কমিটি পরীক্ষা স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। এই সিদ্ধান্ত শুধু সিন্ডিকেটই নিতে পারে।’

এদিকে, আজ শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে আবারও আন্দোলন শুরু করবেন শিক্ষার্থীরা। তাঁরা ১০ দফা দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে অনড়। পাশাপাশি কুষ্টিয়ায় গ্রামের বাড়িতে আবরারের ছোট ভাই ও তাঁর পরিবারের ওপর পুলিশের হামলার বিচারও দাবি করেছেন তাঁরা।

জানা যায়, শিক্ষার্থীদের ১০ দফা দাবির মধ্যে অন্যতম বুয়েট ক্যাম্পাসে ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ করা, আবরার হত্যাকাণ্ডের বিচার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে নিয়ে জড়িতদের ফাঁসি দেওয়া, হল প্রাধ্যক্ষকে প্রত্যাহার, র্যা গিংয়ের নামে বিরোধী মতের ওপর দমন-পীড়ন বন্ধ, হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের স্থায়ীভাবে ছাত্রত্ব বাতিল, র্যা গিং বন্ধ করতে আগের মারধরের ঘটনা জেনে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া এবং আবরার হত্যা মামলার ব্যয়ভার প্রশাসনের বহন করা।

যদিও গত বুধবারই শেরেবাংলা হলের প্রাধ্যক্ষ পদত্যাগ করেছেন বলে জানিয়েছেন। কিন্তু এখনো আদেশ না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা সে দাবি তাঁদের তালিকা থেকে বাদ দেননি।

তবে অদক্ষতা ও নির্লিপ্ততার অভিযোগে বুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলামের পদত্যাগ, বুয়েটে শিক্ষক রাজনীতি বন্ধ, ছাত্ররাজনীতি বন্ধ করতে প্রশাসনের সহায়তাসহ সাতটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষক সমিতি। এ ছাড়া উপাচার্য যদি পদত্যাগ না করেন, তাহলে সরকার যেন তাঁকে অপসারণ করে সে সিদ্ধান্তও নিয়েছে সমিতি। গতকাল বিকেল পৌনে ৩টার দিকে বুয়েট শহীদ মিনারের পাশে শিক্ষক সমিতির নেতা ও অন্য শিক্ষকরা ওই সাত সিদ্ধান্তের কথা জানান।

গত বুধবার শিক্ষক সমিতির এক জরুরি সভায় ওই সাত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ওই সময় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা হাততালি দিয়ে শিক্ষকদের দাবির প্রতি সমর্থন জানান। এমনকি গত বুধবার বুয়েটের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরীও আন্দোলনস্থলে উপস্থিত হয়ে উপাচার্যের পদত্যাগ, বিশ্ববিদ্যালয়ে দলীয় রাজনীতি বন্ধসহ সাত দফা দাবি জানান।

Print Friendly, PDF & Email

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Checkpost Media
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!