রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:১৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
পাবনা ৪ (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনে উপ-নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাস বিজয়ী মাধবপুরে শারদীয় দুর্গা প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত মৃৎ শিল্পীরা সৈয়দপুরে উপজেলা সভাপতির বহিস্ককারের দাবীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের মানববন্ধন জুড়িতে এক ব্যবসায়ীর দুই লাখ টাকা ছিনতাই সৈয়দপুরে পশু খাদ্যের চরম সংকট এক সপ্তাহেই খড়ের দাম তিনগুন বৃদ্ধি সংবাদ প্রকাশ করায় হবিগঞ্জে এশিয়ান টিভির সাংবাদিক এমএ আজিজ সেলিমকে হত্যার হুমকি: থানায় জিডি সৈয়দপুরে বজ্রপাতে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী নিহত বড়লেখায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে কারাদণ্ড বড়লেখায় তালামীযের কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা প্রদান মুফতি আলা উদ্দীন জিহাদীর মুক্তির দাবিতে হবিগঞ্জে আহলে সুন্নাতের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ
দুর্বোধ্য প্রেসক্রিপশনে এবার ‘আদালত অবমাননা’ মামলা

দুর্বোধ্য প্রেসক্রিপশনে এবার ‘আদালত অবমাননা’ মামলা

নিউজ ডেস্ক: স্পষ্ট অক্ষরে পাঠ উপযোগী করে প্রেসক্রিপশন (চিকিৎসাপত্র) লেখার হাইকোর্টের নির্দেশনা অমান্য করায় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক ও পরিচালকের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের হয়েছে।

মামলায় বিবাদীরা হলেন- হাসপাতালের ডেন্টাল সার্জন ডা. প্রজ্ঞা পারমিতা রায় ও পরিচালক ডা. সারোয়ার জাহান।

সোমবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় বেসরকারি একটি টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিবেদকের পক্ষে তার আইনজীবী মনজিল মোরসেদ এই আবেদন করেন। আদালত অবমাননা মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেন এই আইনজীবী।

মঙ্গলবার হাইকোর্টের বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও মোহাম্মদ আলীর সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আবেদনের ওপর শুনানি হবে বলে জানান মনজিল মোরসেদ।

তিনি জানান, এর আগে ৫ সেপ্টেম্বর দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বেসরকারি ওই টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিবেদকের মা চিকিৎসার জন্য যান। ওই সময় ডেন্টাল সার্জন ডা. প্রজ্ঞা পারমিতা রায় চিকিৎসাপত্র দেন। লেখা দুর্বোধ্য হওয়ায় চিকিৎসাপত্রে উল্লেখিত ওষুধ কিনতে বিড়ম্বনায় পড়তে হয় রোগীর স্বজনদের।

ওষুধের দোকানিরা চিকিৎসাপত্রে কী লেখা আছে তা চিহ্নিত করতে ব্যর্থ হন। পরে ওই ঘটনায় রোগীর ছেলে তার আইনজীবীর মাধ্যমে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ও ডেন্টাল সার্জনকে উচ্চ আদালতের নির্দেশ অমান্য করায় আইনি নোটিশ পাঠান। নোটিশের জবাব দেয়ার জন্য সাতদিন সময় দেয়া হয়। কিন্তু জবাব না দেয়ায় এই আবেদন করা হয়।

২০১৭ সালের ৯ জানুয়ারি হাইকোর্ট এক রায়ে চিকিৎসকদের স্পষ্ট অক্ষরে পাঠ উপযোগী ব্যবস্থাপত্র লেখার নির্দেশ দেয়া হয়।

Print Friendly, PDF & Email

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Checkpost Media
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!