রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:১৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
অবৈধ লেনদেনের অভিযোগে শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি ও এক এসআই প্রত্যাহার মাধবপুরে নিরাপত্তার অজুহাতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রাস্তায় বেস্টনি হবিগঞ্জে জেলা ছাত্রদলের প্যাডে বাংলাদেশ বানান ভুল সমালোচনা তুঙ্গে  মৌলভীবাজারে সাংবাদিক রাধিকা মোহন গোস্বামী স্মৃতি পদক ২০২০ প্রদান নবীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির অনুমোদন নীলফামারীতে ৪০ বছর ধরে জোঁয়াল বুকে জড়িয়ে তেলের ঘানি টানছেন সত্তুরোর্ধ মোস্তাকিম তেলি সৈয়দপুরে বন্ধন শিল্পী গােষ্ঠীর রজত জয়ন্তী উদযাপন বড়লেখায় চুরি হওয়া কম্পিউটার ও মোবাইল ফোন উদ্ধার: গ্রেফতার ৫ হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে নিজের কিশোরী মেয়েকে  ধর্ষন করলেন পিতা! মায়ের মামলায় স্মামী কারাগারে আজমিরীগঞ্জ পাহাড়পুর বাজারে ভয়াবহ আগুন
বাংলাদেশে নির্বাচনকালীন সরকার বিতর্কে বিএনপি: “সবাই মিলে কমন ফর্মুলা দেব”

বাংলাদেশে নির্বাচনকালীন সরকার বিতর্কে বিএনপি: “সবাই মিলে কমন ফর্মুলা দেব”

নির্বাচনকালীন সরকারের দাবিতে সংকট সমাধানের লক্ষ্যে শিগগিরই নিরপেক্ষ সরকারের একটি রূপরেখা প্রস্তাব তুলে ধরার প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএনপি।

প্রায় দেড় বছর পর ঢাকায় এক সমাবেশ থেকে আলোচনার ভিত্তিতে নিরপেক্ষ সরকার গঠনসহ বিভিন্ন দাবিতে কর্মসূচি দিয়ে মাঠে নেমেছে দলটি।

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া শেষে আলোচনার ভিত্তিতে রূপরেখা তুলে ধরা হবে জানিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেন, আমরা একটা রূপরেখা দেব।

“এখন আমরা যেহেতু এককভাবে দিতে পারছি না। আমরা যেহেতু জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার মধ্যে আছি। সুতরাং যারা এই জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার মধ্যে আছেন, আমরা সবাই মিলে একটা কমন ফর্মুলা দেব। যে নিরপেক্ষ সরকার বলতে আমরা কী বোঝাই। খুব শিগগিরই দেব।”

কিন্তু ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ বরাবরই বলে আসছে নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে আলোচনার কোন সুযোগ নেই। সংবিধান অনুযায়ী দলীয় সরকারের অধীনেই নির্বাচন হবে।

মাহাবুব উল আলম হানিফ, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উল আলম হানিফ বলেন, “আমরা বারবারই বলেছি যে আমাদের দেশে সংবিধান নিয়ে অনেক কাঁটা-ছেড়া হয়েছে। বিনা কারণে সংবিধান নিয়ে টানা-হেচঁড়ার কোন প্রয়োজন নেই। এখন সংবিধান সংশোধনীর কোন যৌক্তিকতা নেই কোন সুযোগও নেই। আমরা এই সংবিধানের গাইডলাইন অনুযায়ী একটি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পারবো।”

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে ২০১৪ সালের নির্বাচন বর্জন করে চাপের মধ্যে রয়েছে বিএনপি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেন, “সংবিধান সংশোধন করতে তো সরকার রাজী হবে না। রাজী না হলেও সমঝোতা তো হতে পারে। সমঝোতার ওপর ভিত্তিতে একটা নির্দলীয় সরকার হতে পারে। তারপরে সেই সরকারের বৈধতা আগামী সংসদে সংবিধান সংশোধন করে দেয়া যেতে পারে।”

“নির্বাচনকালীন যেহেতু আমরা একটি দল আরেকটি দলকে বিশ্বাস করি না, যেহেতু আমরা নির্বাচনে দাঁড়ালে আমরা যারা সরকারের আছি আমরা নিজেরা জয়ী হওয়ার চেষ্টা করি, সেজন্য আমরা ক্ষমতার অপব্যবহার করি, আমরা পুলিশ এবং আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে আমাদের পক্ষে রাখার চেষ্টা করি। প্রশাসন যাতে আমাদের সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করে সেটার জন্য চেষ্টা করি। এগুলো আমাদের মধ্যে অবিশ্বাস সৃষ্টি করেছে।”

মওদুদ আহমেদ, বিএনপি নেতা।

বাংলাদেশে জাতীয় নির্বাচন এলেই অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা গেছে বিতর্ক। ১৯৯৬ সালে আন্দোলনের মুখে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা প্রবর্তন হয়। ২০০১ সালে শান্তিপূর্ণ ক্ষমতা হস্তান্তর হলেও ২০০৬ সালে আবার নির্বাচনকে ঘিরে মুখোমুখি অবস্থান দেশে জরুরী অবস্থা নিয়ে আসে।

২০১৪ সালে ভোট বর্জন করে বিএনপি। আগামী নির্বাচনের জন্য সংসদ ভেঙ্গে নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতে আন্দোলনের ডাক দিয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রাশেদা রওনক খান বলেন, “সংকট আমাদের সবসময়ই যেটা ছিল দুই দল দুই দলকে না বোঝা। সমঝোতার পথে না যাওয়া। আমাদের রাজনৈতিক ইতিহাসে দেখেছি, কখনোই সংলাপের মাধ্যমে সুফল বয়ে আনে না। কিংবা একটা সফল সংলাপ হয়েছে এরকম উদাহরণ আমরা টানতে পারি না আমাদের বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে।

রাশেদা রওনক খান, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক

“সেই জায়গায় যতক্ষণ পর্যন্ত দুই দলের একটা সমঝোতার জায়গা না আসবে, দুই দল এক যায়গায় একমত না হবে নির্বাচনকে ঘিরে ততক্ষণ পর্যন্ত এই সংকটটা থেকে যাবে। এই সংকট থেকে উত্তরণের সম্ভাবন খুব কম।”

 

 

Print Friendly, PDF & Email

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Checkpost Media
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!